মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
শুক্রবার, ২৫ নভেম্বর ২০১১, ১১ অগ্রহায়ন ১৪১৮
ঋতি্বক ঘটক ॥ নাটকের অঙ্গনে
মলয়চন্দন মুখোপাধ্যায়
ঋতি্বক কুমার ঘটক মূলত আমাদের কাছে একজন চলচ্চিত্রকার হিসেবেই পরিচিত। পরিচালক এবং সংগ্রামী, বিদ্রোহী, বেপরোয়া পরিচালক যিনি কারও সঙ্গে ছবি তৈরি করার ক্ষেত্রে কোনরকম আপোস করেননি। তাই স্বাভাবিক কারণেই তাঁর ছবির সংখ্যা তাঁর সমসাময়িক সত্যজিৎ, মৃনাল সেন, তপন সিংহের চেয়ে অনেক অনেক কম। ১৯৫০ থেকেই চলচ্চিত্র পরিচালক হিসেবে তাঁর আত্মপ্রকাশ, আর ১৯৭৬-এ তাঁর প্রয়াণ। এই ছাবি্বশ বছরে তাঁর পূর্ণ দৈর্ঘের ছবির সংখ্যা মাত্র আটটি। বহু ছবি অসমাপ্ত হয়ে পড়ে আছে তাঁর, প্রযোজক সহসা হাত গুটিয়ে নেয়ায়। এ রকম ছবির সংখ্যা অন্তত . . .
সেই আমি এই আমি
আতিকুল হক চৌধুরীর আত্মজীবনী
(পূর্ব প্রকাশের পর) নাটকের সঙ্গে মুখোশ কথাটির বোধ করি একটি সম্পর্ক আছে। পথেঘাটে ঘরেবাইরে সচরাচর আমরা যখন চলাফেরা করি তখন কি কেউ আমরা মুখের ওপর কোন মুখোশ আঁটি? অবশ্যই না। কিন্তু আমাদের মুখের ওপর কি একটি অদৃশ্য মুখোশ কোন না কোনভাবে থেকেই যায়। নিজেরাও জানি না। মনের ওপর কি কোন মুখোশ থাকে? কি জানি হয়ত থাকে। ছোট ছিলাম যখন তখন মুখোশ মুখোশ খেলা খেলতাম। মুখোশ এঁটে সবাইকে ভয় দেখাতাম। অপরকে ভয় পাইয়ে দেবার মধ্যে একটা মজা আছে। সেই চল্লিশ দশকের কথা। জীবনে প্রথম যাত্রা দেখে যাকে বলে ভীষণ অভিভূত হয়ে পড়েছিলাম। আবেগ . . .
ভার্জিন কনের সন্ধানে
মূল : জিন স্যাসন
অনুসৃতি : আন্দালিব রাশদী
১৯৭৫ আমার জন্য বেদনার ও আনন্দের। আমার ছেলে আবদুল্লাহর দ্বিতীয় জন্মদিন। আমার স্বামী করিম আমাদের নিজস্ব পেস্ননে চড়িয়ে ফ্রান্স থেকে একটি সার্কাস পার্টি নিয়ে এল। সার্কাস আমার ছেলেকে এবং আমাদের সবাইকে আনন্দ দেবে। সার্কাস দলটি করিমের বাবার প্রাসাদে পুরো এক সপ্তাহ অবস্থান করল। আমার সেই হতভাগিনী বোন সারা আর করিমের চটপটে ভাই আসাদের দুঃসাহসী প্রেমপর্বে তারা মুতাওয়াদের (ধর্মীয় অনুশাসন বাস্তবায়নকারী) হাতে ধরা পড়েনি_তারা বিয়ে করেছে এবং প্রথম সনত্মানের প্রতীৰায় রয়েছে। দু'জন প্যারিস থেকে তিনটি দোকানে শিশুর . . .
সিমা কালবাসি-এর কবিতা
সিমা কালবাসি (ঝযববসধ কধষনধংর): মধ্যপ্রাচ্যের একজন তরুণ, উদীয়মান ও সততাঋদ্ধ কণ্ঠস্বর হিসেবে সিমা কালবাসির নাম ইতোমধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বময়। মানবাধিকার কর্মী, অনুবাদক ও নানা পুরস্কারে ভূষিত কবি সিমা কালবাসির জন্ম ১৯৭২ সালের ২০ নবেম্বর, ইরানের রাজধানী তেহরানে। পয়েটট্রি ওব ইরানিয়ান ওমেন প্রজেক্টের পরিচালক সিমা, এক সময় কাজ করেছেন জাতিসংঘে। কাজ করেছেন পাকিস্তানে পালিয়ে আসা যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগান রিফু্যজিদের মাঝেও। এখন পর্যন্ত তার দু'টি কবিতা গ্রন্থ বেরিয়েছে। 'ইকোস ইন এক্সাইল' (ইংরেজী ভাষায়) . . .
আবদেল ইলাহ সালেহী-এর কবিতা
আবদেল ইলাহ সালেহীর জন্ম ১৯৬৮ সালে মরোক্কোর বেনি মিলস্নাহ শহরে। তবে শৈশব এবং কৈশোরের বেশিরভাগ সময় তিনি কাটিয়েছেন এল জাদিদা শহরে। এখান থেকেই তিনি শিৰা সমাপ্ত করেন ১৯৯০ সালে। বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময়েই তাঁর কবিতা লেখা শুরম্ন। ছাত্রাবস্থাতেই তাঁর কবিতা বিভিন্ন ম্যাগাজিনে প্রকাশ পেতে থাকে। এ সময়েই তিনি মরোক্কোর 'নতুন কবিতা' আন্দোলনের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন। এবং নিজেকে এই প্রজন্মের গুরম্নত্বপূর্ণ কবির তালিকায় তুলে ধরতে সৰম হন। ১৯৯০ সালে তিনি ইংরেজী সাহিত্যে স্নাতক ডিগ্রী অর্জন করার পরেই ফ্রান্সে চলে . . .
ভালবাসার সামনে
উপন্যাস, গল্প কিংবা কবিতা থেকে আমরা ভালবাসা সম্পর্কে কি শিখি? দারিদ্র্য, হতাশা এবং চেপে আসা দিগন্তের ভয়ঙ্কর শান্তির ভেতরে আমরা ভালবাসতে শুরু করি, সহ্য করতে থাকি সব অনেক সহজ করে। ঘৃণা নিয়েও আমরা জড়িয়ে ধরে থাকি আমাদের ভালবাসা যার কোন প্রাণ নেই এবং যা বইয়ের বাইরে বেরিয়ে পড়েছে। আমাদের অনেককে ধ্বংস করেছে ভালবাসা, হতাশায় বেশিরভাগই হয়েছে ভবঘুরে। এবং অধিকাংশই অদৃশ্য হয়ে গেছে। তা সত্ত্বেও সময়ে সময়ে কিছু সাহসী ব্যক্তি উপস্থিত হয়েছে। বেশিরভাগ ৰেত্রে একজন তরম্নণ বাসত্মবতার অভিশাপকে ব্যঙ্গ করে পরিধান করে ছিন্নভিন্ন . . .
কবিতা ছন্দ ও প্রকরন
মাহমুদ কামালের
জনকের চোখে জল আপাদমস্তক জলসিক্ত প্রাণোচ্ছল এক উচ্ছ্বসিত তরুণকে পরম স্নেহে বুকে আলিঙ্গন করে উচ্চস্বরে কেঁদে উঠলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব_ 'কেমন করে শোধ করবো এই ভালবাসার ঋণ; তুমি বলে দাও, হে খোদা, তুমি শক্তি দাও। জনগণের এত ভালবাসা আমি কোথায় রাখব হে করম্নণাময়, তুমি বলে দাও।' অবুঝ ছোট শিশুর মতো অঝরে কাঁদছিলেন মুজিব, হেমনত্মের সেই রোদেলা দুপুরে বুড়িগঙ্গার বুকে একটা চলনত্ম লঞ্চের ডেকে দাঁড়িয়ে। ওপরের অংশটুকু শামসুল আরেফিন খান রচিত 'জনকের চোখে জল' গ্রন্থের নাম নিবন্ধের সূচনাংশ। চুয়ালিস্নশটি . . .