মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
বুধবার, ২৯ জুন ২০১১, ১৫ আষাঢ় ১৪১৮
শিরোপা ব্রাজিল না আর্জেন্টিনার?
জাহিদুল আলম জয়
বিশ্বকাপ ফুটবলের পর জনপ্রিয়তার বিচারে কোপা আমেরিকা কাপকেই এগিয়ে রাখেন ফুটবল বোদ্ধারা। ফুটবলের সবচেয়ে প্রাচীন এ আসরকে ঘিরে উন্মাদনার মাত্রাটা বিশ্বকাপ ফুটবলের চেয়ে কোন অংশে কম থাকে না। কেননা, এখানে অংশগ্রহণ করে বিশ্ব ফুটবলের সবচেয়ে সফল ও জনপ্রিয় দু'টি দল ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা। এ দু'টি দলের অংশগ্রহণ যে টুর্নামেন্টে রয়েছে সেই টুর্নামেন্টের জনপ্রিয়তা যাচাইয়ের চেষ্টা করাটা বাতুলতার পর্যায়েই পড়ে! আগামী শুক্রবার থেকে আরও একবার শুরু হতে যাচ্ছে দৰিণ আমেরিকার ফুটবলের শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই। ১৯১৬ সালে . . .
সহজ-স্বাভাবিক জীবনের আনন্দ উপভোগ শফিউলের
মাকসুদা লিসা
সুহাসের পরিবারটাই যেন একটি ফ্যান ক্লাব। ক্রিকেটকে ঘিরে আগ্রহের কমতি নেই পরিবারের কারোর। সুহাস মাঠে খেলেন আর মাঠের বাইরে তাঁকে উৎসাহ যুগিয়ে যান তাঁর মামাত, ফফপাত, চাচাত ভাইবোনরা। সকলের মধ্যমণি সুহাস। তাঁদের সংখ্যাটা নিহায়ত কম নয়, ২৯ জন! এদের নিয়ে দুটো ক্রিকেট টিম গড়া যাবে অনায়াসেই। তবে দুঃসংবাদ_ এ পরিবারের অন্য কেউ খেলাধুলার সঙ্গে সেভাবে সম্পৃক্ত নন। পুরো বংশের একমাত্র আলোকিত নৰত্র তিনি। জাতীয় দলের এ তরম্নণ পেস বোলার ছোটবেলা থেকে ফুফু, চাচা ও খালাদের আদর-সোহাগে বড় হয়েছেন। ছোটবেলায় বড় ফুফু আদর করে . . .
গস্ন্যামার কুইন আনার ক্যারিয়ার কি শেষ ?
রকিবুল ইসলাম
বিশ্ব টেনিসে নৰত্রের মতোই আবির্ভাব আনা ইভানোভিচের। ২০০৩ সালে মাত্র ১৬ বছর বয়সেই পেশাদার টেনিসে প্রবেশ। আলোতে আসতে খুব বেশি সময় লাগেনি। আকর্ষণীয় চেহারা আর সদা হাস্যোজ্জ্বল মুখের জন্য দ্রুতই সারা বিশ্বের কোটি তরম্নণের হৃদয়ে জায়গা করে নেন। র্যাকেট হাতে যেমন দাপট দেখাতে শুরু করেন তেমনি গস্ন্যামারেও সেরাদের কাতারে। জনপ্রিয়তাকে পুঁজি করে স্পন্সর পান কোটি কোটি টাকার। তবে অনেকটা আকস্মিকভাবেই মিলিয়ে যেতে থাকেন ইভানোভিচ। কোর্টে দাপট নেই, শীর্ষস্থান থেকে নেমে এখন র্যাকিংয়ে ১৮ নম্বরে। মুখের হাসিও তাই মিলিয়ে . . .
এক পুঁচকে নেইমার...
শাকিল আহমেদ মিরাজ
সার্জিও বাতিস্তা, হুলিও গ্রোন্ডোনা থেকে শুরু করে সেপ বস্নাটার এমনকি বর্তমান বিশ্বের অঘোষিত অধিশ্বর আমেরিকার প্রেসিডেন্টের সমালোচনা করতেও যাঁর হৃদয় এতটকু কাঁপে না, সেই ম্যারাডোনারই 'পুঁচকে নেইমার'কে নিয়ে করা সমালোচনার সত্য-মিথ্যা প্রমাণের জন্য প্রিয় নাতির মাথায় হাত রেখে দিব্যি দিতে হয়! বোঝাতে হয়, নেইমারকে কখনই পেলের মতো বদমেজাজি বা অহঙ্কারী বলেননি। 'নেইমার সম্পর্কে কি বলব ? ওকে তো ভালমতো জানিই না' একথা বলে কেনই বা বিশ্ব মিডিয়ায় আগামি প্রজন্মের সুপার হিরোকে সচেতনভাবে পাশ কাটানোর . . .
আলো ছড়ালেন যে ফুটবলাররা
মনিজা রহমান
উত্তেজনার বারম্নদে ঠাসা এবারের পেশাদার ফুটবল লীগকে ডেইলি সোপ অপেরার সঙ্গে তুলনা করলে ভুল হবে না। পরতে পরতে যার উত্তেজনা। একটা ম্যাচের জন্য কত আয়োজন ! কতখানি আবেগ-ভালবাসা হাত ধরাধরি করে থাকে সেই ম্যাচকে ঘিরে... যার প্রকাশ ভাষায় কি করা যায় ? স্টেডিয়ামের প্রেক্লাবে বসে সাংবাদিকরা সাৰী হন সেই হাসি-কান্না, হিরা-পান্নার। খেলা শেষে আনন্দ-বেদনার যে যুগলবন্দী হয় মাঠের দুই পাশে তার খুব সামান্যই প্রকাশ পায় পত্রিকার পাতায়। খেলাটা জীবনের কোন মৌলিক প্রয়োজন নয়। তবু তাকে ঘিরে মানুষের এমন যুদ্ধংদেহী মনোভাব সত্যিই . . .