মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১১, ১৩ আশ্বিন ১৪১৮
কল্যাণমন্ত্রে দীক্ষা যাঁর
এম নজরুল ইসলাম
মানুষ হিসেবে যে কোন মানুষের জন্য সবচেয়ে কঠিন কাজটি হচ্ছে, মানুষের আস্থা অর্জন। কঠিন এ কারণেই যে, মানুষ আস্থার সঙ্কটে ভোগে। বাঙালীর আস্থার সঙ্কটের যথাযথ কারণটিও তো অস্বীকার করা যায় না। আস্থার সঙ্কট তখনই দেখা দেয় যখন মানুষ প্রতারিত হয়। বাঙালী বার বার বিশ্বাস স্থাপন করে প্রতারিত হয়েছে। বাঙালীর বিশ্বাসের ভিত্তিমূলে আঘাত করা হয়েছে বার বারই। কিন্তু তারপরও বাঙালী চেয়েছে আস্থার আশ্রয়। আশার বিষয় হচ্ছে, বাঙালী আস্থায় নিতে পারে এমন মানুষের অভাব এখনও হয়নি। এ জাতি উপহার দিয়েছে এমন কিছু মানুষ, যাঁরা মানুষের আস্থা . . .
জন্মদিনে শুভেচ্ছা
সুভাষ সিংহ রায়
আজ শেখ হাসিনার জন্মদিন। ১৯৪৭ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় তাঁর জন্ম। শেখ হাসিনা জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর কন্যা। জননেত্রী, দেশরত্ন, ভাষাকন্যা ইত্যাদি বিশেষণে তাঁকে ভূষিত করা হয়। পুরনো দিনের মানুষরা একান্ত নিজের মতো করে বলেন, 'শেখের বেটি'। বাংলাদেশের বিদগ্ধজনরা যাঁরা তাঁর রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত না তাঁরাও ব্যক্তিগতভাবে শেখ হাসিনাকে পছন্দ করেন। বিগত সেনাসমর্থিত তত্তাববধায়ক সরকার শেখ হাসিনাকে মাইনাস করার জন্য কত প্রকার চেষ্টাই না করেছে। শেখ হাসিনার সততা ও দেশপ্রেমের জন্য স্বমহিমায় প্রতিষ্ঠিত . . .
জন্মদিনের শুভেচ্ছা ও তৃণমূলের কণ্ঠস্বর
আ.স.ম. ফিরোজ
শেখ হাসিনার শৈশবের স্মৃতি বিজড়িত বিভিন্ন লেখা থেকে উদ্ধৃত করে শুরু করছি। ..."সেই সময় আমাদের দুই ভাই-বোনকে নিয়ে আমার মা দাদা-দাদির কাছেই থাকতেন। একবার একটা মামলা উপলক্ষে আব্বাকে গোপালগঞ্জে নিয়ে যাওয়া হয়।... আব্বাকে কামাল কখনও দেখেনি, চেনেও না। আমি যখন বারবার আব্বার কাছে ছুটে যাচ্ছি, আব্বা বলে ডাকছি, ও শুধু অবাক হয়ে তাকিয়ে দেখছে।...অনেক ফুলপাতা কুড়িয়ে থানার বারান্দায় কামালকে নিয়ে খেলতে বসেছি, ও হঠাৎ আমাকে জিজ্ঞেস করল, হাসু আপা, তোমার আব্বাকে আমি একটু আব্বা বলি?" এই গল্পের সূত্র ধরেই তাত্তি্বক . . .
শান্তিকন্যা শেখ হাসিনা
মুহম্মদ নূরুল হুদা
যদিও উত্তর-ষাট, কী এমন বয়স তোমার যখন এখনো হাসো খুলে দিয়ে বাঁধন খোঁপার আপন দর্পণে এসে স্মৃতিময় অতীতের ডাকে_ বাংলার সব নদী হেসে ওঠে উলুঝুলু শরীরের বাঁকে ... চপলা কিশোরী তুমি, শস্যকন্যা, বহমান বাগিয়ার তীরে তাকাও নৌকার পালে, ডাহুকীর গ্রীবা মেলে ধীরে, শস্যের অধরে দেখো টিয়ে আর কিষাণীর বহতা মমতা, পলল ব-দ্বীপ জুড়ে উড়ে আসে পাখালিয়া তামাটে জনতা... তুমি সেই পাখালির ঠোঁটে ঠোঁটে কুড়ানিয়া ধন লাল সবুজের বুকে শস্যরং মানুষের আপন স্বজন এ বাংলার শোভা তুমি, মনোলোভা, ললিত ললনা তোমার গাঙ্গেয় বুকে নৃত্যপর . . .