মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
সোমবার, ১ ডিসেম্বর ২০১৪, ১৭ অগ্রহায়ন ১৪২১
হিলারির চৌকস কূটনীতি
ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীর
এই হেমন্তে আবারও আমি যুক্তরাষ্ট্রে। উত্তর-পূর্বাঞ্চলে চলছে বিশাল বনরাজির পাতাগুলোর হলুদ-লালের সমারোহ। প্রকৃতির এই অপরূপ সমারোহের বিপরীতে পরিচিত রাজনীতির পটে এখন আলোচিত হচ্ছে একটি নাম। হিলারি রডহাম ক্লিনটন যুক্তরাষ্ট্রের ২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে এক নিশ্চিত প্রতিদ্বন্দ্বী। ২০০৮ সালে বারাক ওবামার সঙ্গে প্রেসিডেন্ট পদের প্রার্থিতা নিয়ে ডেমোক্র্যাট দলে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন হিলারি। একই সালের জুন মাসে তিনি তার প্রার্থিতা প্রত্যাহারের কারণ হিসেবে ডেমোক্র্যাট দল কর্তৃক ওবামাকে সমর্থন, সে দেশে . . .
মুক্তিযুদ্ধের দিনগুলি
রবীন্দ্রনাথ ত্রিবেদী
জেনারেল আইয়ুবের আমলে ১৯৬৩ সালের ২৭ ডিসেম্বর কাশ্মীরে ‘হযরতের পবিত্র কেশ’ চুরির অজুহাতে ১৯৬৪ সালে রক্তক্ষয়ী রাষ্ট্রীয়-রাজনৈতিক সাম্প্রদায়িক সহিংসতায় দশ হাজার হিন্দু নিহত হয়। শেখ মুজিবের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের ‘বাঙালি রুখিয়া দাঁড়াও’ প্রতিরোধে ‘ত্রিশজন মুসলিম যুবক হিন্দুদের প্রাণরক্ষার জন্য আত্মত্যাগ করেন’ (বৃহত্তর ঢাকা জেলা গেজেটিয়ার, বাংলাদেশ সরকার, ১৯৯৫, পৃঃ ১০২)। পাকিস্তান সরকার ১৯৬৫ সালের ৬ সেপ্টেম্বর থেকে ১৭ দিনের পাক-ভারত যুদ্ধ ও ১৯৬৬ সালের ৪ জানুয়ারি থেকে . . .
বাংলাদেশের দুর্দিনের বন্ধু
কাজী সেলিম
(৩০ নবেম্বরের পর) বিগত শতাব্দীর পাকিস্তানী ঘাতক সেনাবাহিনীর পরিচালিত ভয়াবহ গণহত্যা, নারী নির্যাতন, ধ্বংসযজ্ঞ, প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও বিপর্যয় এবং প্রতিকূল বিশ্ব অর্থনৈতিক পরিস্থিতির ভয়াবহ ফলশ্রুতি ও একটি চরম অসুবিধাজনক ধ্বংসপ্রাপ্ত দেশের নেতৃত্ব গ্রহণ করে, সম্পূর্ণ শূন্য হাতে যুদ্ধবিধ্বস্ত ধ্বংসস্তূপের মধ্যে দাঁড়িয়ে বাংলাদেশকে সর্বাত্মক পুনর্গঠন করে দেশকে যখন উন্নতি ও অগ্রগতির দিকে নিয়ে যাচ্ছিলেন, ঠিক তখনই ’৭১-এর ঘাপটি মেরে থাকা পরাজিত দুশমন, দালাল, ষড়যন্ত্রকারী পাক-মার্কিন মদদপ্রাপ্ত ঘাতক . . .
সিডনির মেলব্যাগ ॥ অজয় দাশ গুপ্ত
দেশের মায়া ফেলে বিদেশে বসবাসরত প্রবাসীদের দেখে কে বলবে তাঁরা দূরে আছেন? যে যেখানে যে দেশে সেখানেই গড়ে তুলেছেন নিজস্ব ভুবন। আপনি বরফাবৃত অটোয়ায় থাকুন কিংবা বুশ ফায়ারে উত্তপ্ত সিডনিতে থাকুন- কোন পার্থক্য নেই। একবার বাঙালী ভুবনে এসে পড়লেই হলো। সারাদিন যেভাবে কাটুক সন্ধ্যার পর আপনি থাকবেন মাছে-ভাতে। শুঁটকি ভর্তা, মৌরলা মাছের ঝোল, দেশের চাটনি, আচার এমনকি কাঁচালঙ্কাও বাদ পড়বে না। কোন অনুষ্ঠানে গেলে দেখবেন, দেশের চেয়ে এক শ’ গুণ বেশি আবেগে ‘গঙ্গা আমার মা, পদ্মা আমার মা’ কিংবা ‘আমি . . .