মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
মঙ্গলবার, ৪ জানুয়ারী ২০১১, ২১ পৌষ ১৪১৭
ভোজ্যতেল চিনি বিতরণ পদ্ধতি চূড়ান্ত হচ্ছে না ॥ সিন্ডিকেটের কালো থাবা নেপথ্যে
০ ব্যবসায়ীদের অযৌক্তিক আপত্তির কাছে সরকার পিছু হটেছে
০ ভোজ্যতেল আমদানিকারক সমিতি বিতরণ পদ্ধতির বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছে
০ চিনি ও ভোজ্যতেল ঘিরে গড়ে উঠেছে অসাধু চক্র
মিজান চৌধুরী ॥ ভোজ্যতেল ও চিনির 'বিতরণ পদ্ধতি' চূড়ান্ত না হওয়ার নেপথ্যে রয়েছে ব্যবসায়ীদের কালো থাবা। সরকার চাইলেও ব্যবসায়ীদের চরম আপত্তির কারণে বাস্তবায়ন করতে পারছে না। রবিবার বৈঠকে বিতরণ পদ্ধতি চূড়ান্ত ঘোষণা দেয়ার কথা। কিন্তু ব্যবসায়ীদের অদ্ভুত আপত্তির কারণে সরকার কিছুটা পিছুটান নেয়। ফলে সরকারের সকল প্রস্তুতি থাকা সত্ত্বেও বিতরণ পদ্ধতির চূড়ান্ত ও বাস্তবায়ন নিয়ে আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। বৈঠকে উপস্থিত থাকা বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উর্ধতন এক কর্মকর্তার কাছ থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে। এদিকে আজ মঙ্গলবার . . .
মার্কিন চাপে বোয়িং ক্রয়ে বাধ্য হয় বাংলাদেশ ॥ উইকিলিকস
বিশেষ প্রতিনিধি ॥ এবার বোয়িং কিনতে গিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতারণার শিকার হয়েছে বাংলাদেশ_এমন প্রতিবেদনই প্রকাশ করেছে সাড়াজাগানো ওয়েবসাইট উইকিলিকস। বলছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কূটনীতিকদের চাপেই বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সরকার দেশটির কাছ থেকে 'বোয়িং' বিমান ক্রয় করে। তবে বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্রের চাপে বোয়িং কেনার চুক্তি করলেও এর বিনিময়ে জন এফ কেনেডি বিমানবন্দরে অবতরণ সুবিধা পায়নি। এ ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতারণার শিকার হয় বাংলাদেশ। বিশ্বজুড়ে যুক্তরাষ্ট্রের কূটনীতিকদের তৎপরতার কথা ফাঁস . . .
ব্যাংকগুলোয় ডলার সঙ্কট, এলসি খুলতে সমস্যা
বাংলাদেশ ব্যাংককে বাজারে পর্যাপ্ত ডলার ছাড়ার পরামর্শ
শফিকুল ইসলাম জীবন ॥ বিনিয়োগ যখন চাঙ্গা হচ্ছে তখন বৈদেশিক মুদ্রাবাজারে ভর করছে অশনিসঙ্কেত। নেতৃত্বশীল ব্যবসায়ী এবং সিনিয়র ব্যাংকার এই পরিস্থিতিকে দেশের সার্বিক ব্যবসাবাণিজ্য এবং বিনিয়োগের জন্য মোটেও মঙ্গলজনক নয় বলে মন্তব্য করেছেন। ব্যাংকগুলো নতুন করে ডলার সঙ্কটে পড়ছে। ফলে ব্যবসায়ীরা আমদানির এলসি খোলার জন্য পর্যাপ্ত ডলার সরবরাহ পাচ্ছে না। মূল্যস্ফীতি রোধ এবং ব্যবসাবাণিজ্য ও বিনিয়োগের বর্তমান চাঙ্গাভাব ধরে রাখতে এই মুহূর্ত থেকে বাংলাদেশ ব্যাংককে বাজারে পর্যাপ্ত ডলার ছাড়ার পরামর্শ দিয়েছেন দক্ষিণ এশীয় . . .
কনকনে শীতে কাঁপছে সারাদেশ
মৃতের সংখ্যা বাড়ছে, ঘন কুয়াশায় নৌ ও যান চলাচল ব্যাহত
স্টাফ রিপোর্টার ॥ কনকনে শীতে কাঁপছে সারাদেশ। তীব্র শীত ও শীতজনিত রোগে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। গত দু'দিনে গাইবান্ধায় দু'জনের মৃত্যু হয়েছে। ঘন কুয়াশা, দিনের তাপমাত্রা হ্রাস এবং ঠাণ্ডা বাতাসের কারণে শীতের তীব্রতা বেড়েছে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা। শীতবস্ত্রের অভাবে চরম দুর্ভোগে পড়েছে গরিব মানুষ। প্রতিদিন সকালবেলা ঘনকুয়াশায় ঢাকা থাকছে সারাদেশ। নৌ ও সড়কপথে যান চলাচল চরমভাবে ব্যাহত হচ্ছে। দিনমজুরেরা সঠিক সময়ে কাজে নামতে পারছে না। আলুৰেতসহ শীতকালের বিভিন্ন ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা করছেন . . .
প্রথম পঁচিশ ঘণ্টার বিচারে ২২ জন দণ্ডিত যেভাবে
ন্যুরেমবার্গ ট্রায়াল_১
মামুন-অর-রশিদ ॥ দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে গণহত্যার বিরুদ্ধে নু্যরেমবার্গ ট্রায়াল বিশ্বব্যাপী স্বীকৃত ও গ্রহণযোগ্য বিচার ব্যবস্থা। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে যুদ্ধাপরাধ এবং মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধের প্রথম বিচার প্রক্রিয়া। বিশ্বে গণহত্যার বিরুদ্ধে এটিই সর্বপ্রথম আন্তর্জাতিক আদালত। নু্যরেমবার্গ ট্রায়াল দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে গণহত্যার দায়ে মোট ৩০ জনকে মৃত্যুদ-সহ বিভিন্ন মেয়াদে শাসত্মি দিয়েছে। ১৯৪৫ সালের ২০ নবেম্বর বিশ্বে গণহত্যার বিরুদ্ধে গঠিত আন্তর্জাতিক আদালতে প্রথম ২৫ ঘণ্টার বিচারকার্যে অভিযুক্ত ২৪ জনের মধ্যে দু'জন . . .
সুপ্রীমকোর্ট পার্লামেন্টের কাছে জবাবদিহি করবে না
বিচারপতিরা সৃষ্টিকর্তা ও আপন বিবেক ছাড়া কাউকে জবাবদিহি করেন না ॥ ফুলকোর্ট মিটিংয়ে অভিমত
বিকাশ দত্ত ॥ সুপ্রীমকোর্ট পার্লামেন্টের কাছে কোন জবাবদিহি করবে না। বিচারপতিগণ সৃষ্টিকর্তা ও নিজের বিবেক ছাড়া কারও কাছে জবাবদিহি করেন না। সংসদীয় কমিটির বৈঠকে সুপ্রীমকোর্টকে তলব করার এখতিয়ার নেই। পৃথিবীর কোন জজ পার্লামেন্টের কাছে জবাবদিহি করেন না। এমনকি ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ আদালতও পার্লামেন্টের কাছে জবাবদিহি করে না। সোমবার জাজেস রম্নলে ফুলকোর্ট মিটিংয়ে বিচারপতিরা এ অভিমত দিয়েছেন। একই সঙ্গে চট্টগ্রাম জেলায় যে পাঁচটি বেঞ্চ দেয়ার কথা ছিল তাও বাতিল করা হয়েছে। বেঞ্চ পরিবর্তন সরকারের নির্দেশে নয়, বিচারপতিরা . . .