মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
মঙ্গলবার, ৬ সেপ্টেম্বর ২০১১, ২২ ভাদ্র ১৪১৮
ভাঙ্গা রাস্তার সুড়ঙ্গ পথে শেয়ালের আনাগোনা
গোলাম কুদ্দুছ
কিছুদিন ধরেই দেশব্যাপী একটা অস্থিরতা পরিলক্ষিত হচ্ছে। রাজনীতিবিদ, সাংবাদিক, বুদ্ধিজীবী, সংস্কৃতিসেবী, নাগরিক সমাজ সবাই দ্বিধান্বিত, অজানা আশঙ্কায় শঙ্কিত_কি হচ্ছে কি করা উচিত। মারাত্মক সড়ক দুর্ঘটনায় বরেণ্য চলচ্চিত্র নির্মাতা তারেক মাসুদ এবং শহীদ মুনীর চৌধুরীর সন্তান সাংবাদিক, চিত্রগ্রাহক মিশুক মুনীরের অকাল মৃত্যু সবাইকে বিমূঢ় করে দেয়। দেশের দুই কৃতী সনত্মানের এইভাবে অসময়ে চলে যাওয়া কেউই মেনে নিতে পারেনি। দলমত নির্বিশেষে সবাই ব্যথিত-ক্ষুব্ধ। এর আগে চট্টগ্রামের মীরসরাইতে আরেক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছে . . .
ভাল নেই পৃথিবী
শামীম আহমেদ
অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক ও সামাজিক সব দিক দিয়ে পৃথিবী এক ক্রান্তিকালের মধ্য দিয়ে অতিক্রম করছে। ভাল নেই পৃথিবী। একের পর এক সমস্যায় জর্জরিত জনমানববহুল এই গ্রহটি। কিছু সমস্যা প্রকৃতি সৃষ্ট, কিছু মানুষের। সমস্যার পর সমস্যার বেড়াজালে আটকে যাচ্ছে পৃথিবী। প্রায় সাড়ে ছয় শ' কোটি মানুষের বাস এ ধরণী দিন দিন বসবাসের অযোগ্য হয়ে উঠছে। ক্ষুধা, দারিদ্র্য, যুদ্ধ, বিগ্রহ, রোগ-শোক, মন্দা, প্রাকৃতিক ও মানবিক বিপর্যয় বেড়েই চলছে। পৃথিবীর বহু সভ্যতা ও সাম্রাজ্যের উত্থান হয়েছে আবার কালের বিবর্তনে তা ইতিহাসের পাতায় নাম লিখিয়েছে। . . .
স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পী অজিত রায়ের চিরবিদায়
ফকির আলমগীর
চলে গেলেন এ দেশের রবীন্দ্রসঙ্গীত ও গণসঙ্গীতের কিংবদন্তিতুল্য সুরকার, শিল্পী অজিত রায়। রাজধানীর বারডেম হাসপাতালে ৪ সেপ্টেম্বর রবিবার দুপুর একটা পাঁচ মিনিটে তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৩ বছর। তিনি স্ত্রী বুলা রায়, কন্যা শ্রেয়সী রায় ও পুত্র রোমাঞ্চ রায়সহ অসংখ্য ভক্ত, শ্রোতা ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তাঁর মৃত্যুর খবরে দেশের সাংস্কৃতিক অঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে আসে। হাসপাতালে ছুটে যান সংসদ উপনেতা সাজেদা চৌধুরী, তথ্যমন্ত্রী আবুল কালাম আজাদসহ অসংখ্য কণ্ঠশিল্পী, যন্ত্রশিল্পী। শোক প্রকাশ করেন . . .
বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক
ভারতের প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিংয়ের বাংলাদেশ সফরের মধ্য দিয়ে দুটি দেশের সম্পর্কোন্নয়নের ক্ষেত্রে এক নতুন অধ্যায়ের সৃষ্টি হতে যাচ্ছে। জানা গেছে, ভারতের প্রধানমন্ত্রীর বাংলাদেশ সফরকালে দুটি দেশের মধ্যে বিভিন্ন বিষয়ে প্রায় ১৪টি চুক্তি, সমঝোতা স্মারক ও প্রটোকল স্বাৰরিত হতে পারে। এর মধ্যে প্রধান যে তিনটি চুক্তি স্বাৰরিত হবে সেগুলো হলো_ তিস্তা ও ফেনী নদীর পানি বণ্টন, সীমান্ত সমস্যার সমাধান, ছিটমহল ও অপদখলীয় জমি বিনিময় এবং অনিষ্পন্ন সাড়ে ৬ কিলোমিটার সীমান্ত চিহ্নিতকরণ। একই সঙ্গে বিদ্যুত ক্রয়, দু'দেশের . . .