মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
বৃহস্পতিবার, ৯ জুন ২০১১, ২৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪১৮
যখন সকলেই অন্ধকারের যাত্রী
স্বদেশ রায়
সম্প্রতি ভিয়েতনামী এক ভদ্র মহিলার জীবন কাহিনীর একাংশ পড়ছিলাম। ছোটবেলায় মানব পাচারকারীদের কবলে পড়ে তিনি পাচার হয়ে যান। তারপরে একের পর এক অন্ধকার পথ ঘুরতে হয়েছে তাঁকে। কিন্তু তিনি থেমে যাননি। অন্ধকার থেকে আলোর জগতে আসতে পেরেছেন। এখন তিনি ভিয়েতনামের একজন মানবাধিকার ও বেসরকারী উন্নয়ন কর্মী। ভিয়েতনামের সমাজ ও অর্থনীতিতে তিনি তাঁর যোগ্যতা দ্বারা প্রতিনিয়ত দান করে যাচ্ছেন। তবে তাঁর কাহিনীর ভেতর সব থেকে বড় বিষয় হলো নিজেকে বর্ণনা করতে গিয়ে মাঝে মাঝে তিনি সমাজ ও নারী সম্পর্কে দু একটি উক্তি করেছেন। অভিজ্ঞতা . . .
খবর শুধু খবর নয়
নিয়ামত হোসেন
প্রেসিডেন্টের টয়লেট ব্যবহারে শাস্তি জিম্বাবুইয়ের বুলাওয়ে শহরে শুরু হয়েছে বাণিজ্যমেলা। লোকজনের যথেষ্ট ভিড়। কৌতূহলী দর্শকেরা মেলার ব্যাপারে বিশেষ উৎসাহী। মেলায় যে কোন সময় আসতে পারেন দেশের প্রেসিডেন্ট। তাঁর আগমন এবং খানিকৰণ অবস্থানের সময় যা যা প্রয়োজন সব কিছুরই ব্যবস্থা সুসম্পন্ন করা হয়েছে। এই ভিড়ভাট্টার মধ্যে এক পুলিশ পড়ল মুশকিলে। অনেকৰণ ধরে ডিউটি করতে করতে বেচারার জলত্যাগের প্রয়োজন দেখা দেয়ায় তিনি ছুটলেন সামনের টয়লেটের দিকে। সেখানেও ভিড়। পুলিশ ও গোয়েন্দার দল। তিনি ঢুকতে যাচ্ছেন, পেলেন বাধা। কোন . . .
শিক্ষানীতির বাস্তবায়ন
স্বাধীনতার পর থেকে সাতটি শিক্ষানীতি প্রণীত হলেও কোন শিক্ষানীতি বাস্তবায়িত হয়নি। এর ফলে দেশব্যাপী শিৰাৰেত্রে এক ধরনের বিশৃঙ্খলা ও সমন্বয়হীনতা বিরাজ করছে। এবার জাতীয় শিক্ষানীতি প্রণীত হওয়ার পর তা সর্বসত্মরের বুদ্ধিজীবী ও শিৰাবিদদের কাছ থেকে প্রশংসা অর্জন করে। অনেকেই বলেছিলেন, এ শিৰানীতি বিজ্ঞানভিত্তিক ও আধুনিক। কিন্তু কোন বিষয় যত ভালই হোক না কেন, তা যদি যথাযথভাবে বাস্তবায়িত না হয়, তবে তার কোন মূল্য থাকে না। জানা গেছে, এবার আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় আটকে গেছে শিক্ষানীতির পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়ন। এর ফলে জতি . . .
সম্পাদক সমীপে
মুহিতকে অভিনন্দন এভারেস্ট সর্বোচ্চ পর্বত শৃঙ্গ। এডমন্ড হিলারি ও তেনজিং নোরগে সর্বপ্রথম এভারেস্টের অহঙ্কার চূর্ণ করে সর্বোচ্চ চূড়ায় পা রাখেন। সেখানে গিয়ে তারা বিভিন্ন দেশের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন। সেখানে বাংলাদেশের পতাকাটি ছিল না। তাই বলে আমরা আর বসে থাকিনি। পরপর দু'জন এভারেস্ট জয় করেছেন। সেখানে তারা আমাদের পতাকা উড়িছেন এবং বিশ্বের বুকে বাঙালী হিসেবে আবার সাহসীকতার প্রমাণ দেখিয়েছেন। নামগুলো চিরদিন বাংলার বুকে স্বর্ণাৰরে লেখা থাকবে মুসা ইব্রাহীম এবং এম মুহিত। মুহিত দ্বিতীয়বারের মতো এভারেস্ট . . .