মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
বৃহস্পতিবার, ৫ মে ২০১১, ২২ বৈশাখ ১৪১৮
লাদেন ও পাকিস্তান
স্বদেশ রায়
লাদেন হত্যা অপারেশনের বিষয়ে আমেরিকা কোন কিছুই জানায়নি পাকিস্তানকে। তাদের সিদ্ধান্ত ছিল জানানো হলে সেটাই হবে অপারেশন ব্যর্থতার কারণ। এ কারণে তাদের হত্যা অভিযান শেষ হবার পরেই পাকিস্তানকে জানানো হয়। আমেরিকার এ কাজ থেকে প্রমাণিত হয়, তারা স্থির ছিল, পাকিস্তান জানতে পারলে তাদের এ অভিযান কোন মতেই সফল হবে না। আর এটুকু বুঝতে সিআইএর কোন ঝানু কর্মকর্তা হবার প্রয়োজন পড়ে না। কারণ, দশ বছর ধরে যারা তাকে আশ্রয় দিচ্ছে এবং শেষ অবধি যার অবস্থানের খবর পাওয়া গেল পাকিস্তান সামরিক একাডেমীর পাশেই একটি দুর্ভেদ্য দুর্গের . . .
লাদেনের পর
আল কায়েদার শীর্ষ নেতা ওসামা বিন লাদেন নিহত হওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমাবিশ্বে স্বস্তি ফিরে এসেছে। এ ঘটনায় মার্কিন জনগণ ওয়াশিংটন, নিইউয়র্ক ও অন্যান্য শহরে সমবেত হয়ে স্বতঃস্ফূর্তভাবে উলস্নাস প্রকাশ করেছে। উলেস্নখ্য, রবিবার গভীর রাতে পাকিস্তানের এ্যাবোটাবাদে মার্কিন কমান্ডোদের সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত হন ওসামা বিন লাদেন। আল কায়েদা নেতার সঙ্গে তার কনিষ্ঠ স্ত্রীসহ মোট চারজন নিহত হন। সে রাতেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা জাতির উদ্দেশে দেয়া এক টেলিভিশন ভাষণে লাদেনকে হত্যা করার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেন। দশ বছর . . .
আহরণ
কঠোর অবস্থান ভিন্নমতালম্বীদের বিষয়ে চীন সরকার কঠোর অবস্থান নিয়েছে, বিশেষ করে যারা বাক-স্বাধীনতার পৰে। ফেব্রুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত এ কারণে গ্রেফতার হয়েছে ৫৪ জন। সম্প্রতি একটি হোটেল থেকেও একজন ভিন্নমতাবলম্বী আইনজীবীকে আটক করা হয়। -আইএইচটি-১৬-১৭ এপ্রিল'২০১১ . . .