মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
রবিবার, ৬ ফেব্রুয়ারী ২০১১, ২৪ মাঘ ১৪১৭
একুশ শতক
ডিজিটাল বাংলাদেশের নেপথ্য কথা_
মোস্তাফা জব্বার
পনেরো ৬ জানুয়ারি ২০১০ শেখ হাসিনার সরকার যখন বর্ষপূতি করে তখন দেশের সকল প্রধান পত্রিকাতেই একটি বিশেষ সংখ্যা প্রকাশিত হয়। সেই বিশেষ সংখ্যায় ছাপা হয় আমার একটি লেখা। লেখাটি এ রকম : ডিজিটাল বাংলাদেশ ॥ একুশ শতকে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা_ মোসত্মাফা জব্বার ১. পূর্বকথা : পুরো একটি বছর পার হয়েছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার দ্বিতীয় সরকার গঠন করার। সরকারের এই এক বছরের সাফল্য ও ব্যর্থতার চূড়ান্ত বিচার করার ৰমতা আসলে দেশের ১৬ কোটি জনগণের। বিশেষ করে এই সরকার যখন দিন বদলের . . .
ই-ভোটিংয়ের পক্ষে সকলের ঐকমত্য জরুরী
ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ, ড. এ.কে.এম. রিয়াজুল হাসান ও এমজি কিবরিয়া সরকার
এক. ১২ জানুয়ারি ২০১১ দৈনিক জনকণ্ঠে ই-ভোটিং ব্যবস্থার সফল বাস্তবায়ন নিয়ে আমাদের লেখায় ই-ভোটিং ব্যবস্থার নানা দিক নিয়ে আমরা আলোচনা করেছি। তারই ধারাবাহিকতায় আজ দ্বিতীয় লেখা। ই-ভোটিং ব্যবস্থার বৈশ্বিক প্রেক্ষাপট জানা থাকলে তা আমাদের এই ব্যবস্থা বাস্তবায়নে সঠিক দিকনির্দেশনা প্রদানে সহায়ক হবে। আজকের লেখায় ভারত, যুক্তরাষ্ট্রসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের ই-ভোটিং ব্যবস্থার সাফল্য এবং একই সঙ্গে ব্যর্থতার কথা তুলে ধরার চেষ্টা করা হবে। পুরো দুনিয়ায় ভারতকে এখন ই-ভোটিং ব্যবস্থার মডেল রাষ্ট্র হিসেবে গণ্য করা হয়। অথচ . . .
প্রতি ইউনিয়নে রেশন
অচিরেই দেশে ইউনিয়ন পর্যায়ে রেশন চালু হচ্ছে। খাদ্যমন্ত্রী আবদুর রাজ্জাক বৃহস্পতিবার প্রতিটি ইউনিয়নে রেশন ব্যবস্থা চালুর জন্য খাদ্য অধিদফতরকে নির্দেশ দিয়েছেন। তাঁর নির্দেশ অনুযায়ী অবিলম্বে সংশিস্নষ্ট অধিদফতর কাজ শুরু করেছে। জানা গেছে, প্রাথমিক পর্যায়ে প্রতি ইউনিয়নে এক হাজার নিম্ন আয়ের পরিবার রেশন পাবে। প্রতি পরিবারকে ১০ কেজি চাল ও ১০ কেজি গম দেয়া হবে। রেশনে চালের দাম রাখা হবে প্রতি কেজি ২৪ টাকা এবং গমের দাম প্রতিকেজি ২০ টাকা। এ সিদ্ধানত্মে নিঃসন্দেহে মহাজোট সরকারের কল্যাণমূলক আকাঙ্কাই প্রতিফলিত হয়েছে। . . .
সিদ্ধান্ত বাতিল এবং তারপর
আড়িয়াল বিলে বিমানবন্দর নির্মাণের সিদ্ধান্তের অতি প্রাথমিক পর্যায়ে কাজ করতে গিয়ে ঘটে গেছে অত্যন্ত দুঃখজনক এবং অনাকাঙ্ৰিত ঘটনা। সেই সিদ্ধান্ত এবং দুঃখজনক ঘটনার জের ধরে অনেক উত্তেজনা সৃষ্টি হয় এবং এসবের জের আরও অনেক দূর গড়াতে পারে এমন আশঙ্কা সৃষ্টি হয়। তবে অতি দ্রুত সরকারের একটি সিদ্ধান্ত গোটা পরিস্থিতিকে পাল্টে দেয়। প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, আড়িয়াল বিলে প্রস্তাবিত বিমানবন্দর হবে না। ওটা হবে পদ্মার ওপারে। আড়িয়াল বিলে বিমানবন্দর যে হচ্ছে না সেই সিদ্ধান্তটি যে স্বস্তিকর এবং সংশিস্নষ্ট এলাকার মানুষজনের . . .